ক।

১। রাউটার কী?

রাউটারঃ রাউটার একটি বুদ্ধিমান কানেক্টিভিটি ডিভাইস যা বিভিন্ন ধরণের নেটওয়ার্ককে সংযুক্ত করতে পারে। ডেটা প্রেরণের ক্ষেত্রে সবচেয়ে কম দূরতের পাথ ব্যবহার করে। এটি একটি বুদ্ধিমান কানেক্টিভিটি ডিভাইস যা লজিক্যাল এবং ফিজিক্যাল এড্রেস ব্যবহার করে দুই বা ততধিক নেটওয়ার্ক সেগমেন্টের মধ্যে ডেটা আদান প্রদানের ব্যবস্থা করে।   

২। ক্লাউড কম্পিউটিং কী?

ক্লাউড কম্পিউটিং: ক্লাউড কম্পিউটিং এমন একটি কম্পিউটিং প্রযুক্তি যা ইন্টারনেট এবং কেন্দ্রীয় রিমোট সার্ভার ব্যবহারের মাধ্যমে ডেটা এবং এপ্লিকেশন সমূহ নিয়ন্ত্রণ ও রক্ষণাবেক্ষণ করতে সক্ষম।

৩। রেডিও ওয়েভ কী?

 

 

৪। টপোলজি কী?

টপোলজিঃ একটি নেটওয়ার্কের ফিজিক্যাল ডিভাইস বা কম্পোনেন্ট সমূহ যেভাবে পরস্পরের সাথে যুক্ত থাকে তাকে বলা হয় নেটওয়ার্ক টপোলজি।

৫। মডুলেশন কী?

 

 

৬। গেটওয়ে কী?

গেটওয়েঃ যে ডিভাইস বিভিন্ন ধরনের প্রোটোকল সমৃদ্ধ নেটওয়ার্ক গুলোকে সংযুক্ত করে তাকে গেটওয়ে বলে।

খ।

১। “অ্যাসিনক্রোনাস ট্রান্সমিশনে সময় বেশি লাগে” – ব্যাখ্যা কর।  

উত্তরঃ যে ডেটা ট্রান্সমিশন পদ্ধতিতে ডেটা প্রেরক হতে ক্যারেক্টার বাই ক্যারেক্টার আকারে গ্রাহকের কাছে ট্রান্সমিট করা হয়, তাকে অ্যাসিনক্রোনাস ডেটা ট্রান্সমিশন বলে।

একটি ক্যারেক্টার ট্রান্সমিট হবার পর বিরতি দিয়ে পরের ক্যারেক্টার ট্রান্সমিট করা হয়, আর এই বিরতি সব সময় সমান না হয়ে ভিন্ন ভিন্ন হতে পারে। আর এতে ডেটা ট্রান্সমিশনে সময় বেশি লাগে।

প্রতিটি ক্যারেক্টারের শুরুতে একটি স্টার্ট বিট এবং শেষে দুটি স্টপ বিট যোগ করে ডেটা ট্রান্সমিট করা হয়, ফলে মূল ডেটার পরিমাণ বৃদ্ধি পায়। আর এতে ডেটা ট্রান্সমিশনে সময় বেশি লাগে। 

২। “যে ক্যাবলকে নেটওয়ার্কের ব্যাকবোন বলা হয়” - ব্যাখ্যা কর।

 

 

 

৩। ক্লাউড কম্পিউটিং এর জনপ্রিয়তার কারণ কী?

 

 

 

৪। “স্বল্প দূরত্বে বিনা খরচে ডেটা স্থানান্তর সম্ভব” - ব্যাখ্যা কর।

উত্তরঃ ব্লুটুথ এর মাধ্যমে স্বল্প দূরত্বে বিনা খরচে ডেটা স্থানান্তর সম্ভব। ব্লুটুথ হচ্ছে স্বল্প দূরত্বের যা ১০ মিটারের কাছাকাছি বিনা খরচে ডেটা আদান প্রদানের জন্য বহুল প্রচলিত ওয়্যারলেস প্রযুক্তি। ব্লুটুথ এর সাহায্যে  স্বল্প দূরত্বে  বা  ১০ মিটারের ভেতর থাকা সব ডিভাইস সমুহের মধ্যে ডেটা আদান প্রদান করা যায়।

৫। বাস টপোলজির মাধ্যমে কীভাবে সুবিধা পাওয়া যায়?

 

 

৬। “আলোর গতিতে ডেটা স্থানান্তর সম্ভব” - ব্যাখ্যা কর।

উত্তরঃ আলোর গতিতে ডেটা স্থানান্তরিত হয় ফাইবার অপটিক ক্যাবলের সাহায্যে। ফাইবার অপটিক ক্যাবল হল কাঁচ দ্বারা তৈরি এক ধরণের ডাই-ইলেক্ট্রিক পদার্থ। ফাইবার অপটিক ক্যাবলের ভেতর দিয়ে আলোর পূর্ণ অভ্যন্তরীণ প্রতিফলন পদ্ধতিতে ডেটা উৎস হতে গন্তব্যে গমন করে। যেহেতু আলোর গতি ইলেকট্রনের গতির তুলনায় বেশি তাই ফাইবার অপটিক ক্যাবলের মধ্য দিয়ে সবচেয়ে বেশি এবং দ্রুতগতিতে ডেটা আদান প্রদান করা যায়।    

Advertisements

advertise

Copyright © Tutorials Valley